সদুপদেশ গুলিকে নিজের জীবনে পালন করো | Gautam Buddha Story in Bangla

Gautam Buddha Inspirational Story


একদিন গৌতম বুদ্ধ তাঁর একজন প্রিয় ভক্তের বাড়ি গিয়েছিলেন | পরদিন সকালবেলা সেই ভক্তটি তার প্রভুর প্রবচনের সমস্ত আয়োজন করেন | মহাত্মা বুদ্ধের প্রবচন শোনার জন্য দূর দূর থেকে গ্রামের বহু মানুষ সেই ব্যক্তিটির বাড়ি এসে উপস্থিত হন |

কিন্তু প্রবচন শুরু হওয়ার সময় তাঁর সেই ভক্তটি সেখানে উপস্থিতই ছিলনা যা দেখে গ্রামের সকল মানুষেরা ভীষণ রেগে যায় এবং তারা একে অপরকে বলতে শুরু করেন যে, সেই ব্যক্তিটি না কি মহাত্মা বুদ্ধের অমুল্য প্রবচনের ঘোর অপমান করেছেন |

এইভাবে দেখতে দেখতে বুদ্ধের প্রবচনও এক সময় শেষ হয় এবং গ্রামের সকল মানুষরা একে একে নিজের বাড়িও চলে যান তারপর |

ঠিক সন্ধ্যে নামার কিছু আগে সেই ভক্তটি অবশেষে নিজের বাড়িতে আসেন | তখন বুদ্ধ তাকে জিজ্ঞাসা করলেন – “তুমি কোথায় চলে গেছিলে সবাই তোমার কথা জিজ্ঞেস করছিল” | তখন সেই ব্যক্তিটি বুদ্ধকে সারাদিনের সব কথা খুলে বলেন |

তিনি বলেন, “প্রভু; সকালে আমি যখন আপনার প্রবচনের সব আয়োজন করতে ব্যস্ত ছিলাম তখন হঠাৎই আমার একমাত্র গরুটি অসুস্থ হয়ে পরে |

Read More:-
*পূজা ও মন্ত্রচারণ দ্বারা স্বর্গলাভ হয়না (গৌতম বুদ্ধের কাহিনী)
*শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবনী

তখন আমি তাকে সুস্থ করার জন্য ঘরোয়া ওষুধ খাওয়াই কিন্তু তাতে কোনো লাভই হয়না, গরুটির শরীর আরো খারাপ হতে থাকে | তখন আমি আর দেরী না করে তাকে পশু চিকিৎসালয়ে নিয়ে যাই |

আমি যদি গরুটিকে আজ চিকিৎসকের কাছে ঠিক সময় না নিয়ে যেতাম, তাহলে গরুটির মৃত্যু একদম নিশ্চিত ছিল আর আপনার প্রবচন তো আমি পরেও কোনো একসময় শুনে নিতেই পারতাম” |

পরদিন সকালবেলা গ্রামের সকল মানুষেরা গৌতম বুদ্ধের কাছে কালকের ঘটনার জন্য নালিশ জানাতে আসলো |

তারা মহাত্মা বুদ্ধকে বললেন – “প্রভু এই ব্যক্তিটি ভীষণ খামখেয়ালী, এ আপনার প্রবচনের কোনো গুরুত্ব না দিয়ে সারাদিন কাল বাইরে ছিল | এ আপনার আসলে কোনো ভক্তই না শুধু আপনার কাছে ভক্ত হওয়ার ভান করে” |

এরপর মহাত্মা বুদ্ধ গ্রামের সবাইকে কালকের সমস্ত ঘটনাটি বললেন | তিনি এও বললেন কিভাবে সেই ব্যক্তিটি তাঁর প্রবচনকে একদম গুরুত্ব না দিয়ে নিজের কর্মকে গুরুত্ব দিয়েছেন সবার আগে |

আর ব্যক্তিটি এটাও প্রমান করে দেখিয়েছেন যে সে কিভাবে তার বচনকে নিজের জীবনে পালন করে চলেছে একদম সঠিক ভাবে |

কাল যদি ব্যক্তিটি এইসব হওয়ার পরও তাঁর প্রবচন শোনার জন্য সেখানে বসে থাকত, তাহলে গরুটি কালই মারা যেত| এরফলে তাঁর সমস্ত বচনই একদম বিফলে যেত|

বুদ্ধের মুখ থেকে এইসব শোনার পর গ্রামের সকল মানুষরা ভিতর ভিতর ভীষণ লজ্জিত বোধ করলো এবং তারা তাদের ভুলটিও বুজতে পারল অবশেষে |

Moral of the Story

আজকের কাহিনীটির থেকে আমরা শিক্ষা পেলাম যে, প্রত্যেকটি মানুষেরই জীবনে পাওয়া গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ গুলিকে শুধু শোনা কখনই উচিত নয় |

জীবনে উন্নতি করতে গেলে সেই প্রত্যেকটি সৎ উপদেশ গুলিকে বাস্তবে পালন করাও উচিত |

আজকে বিভিন্ন সোশাল মিডিয়া প্লাটফর্ম-এ দেখি অনেক মানুষ তার timeline বা স্টেটাসে মহান সব মানুষদের উপদেশ শেয়ার করতে ভালবাসেন |

কিন্তু maximum মানুষই যারা এইসব শেয়ার করে তারা তাদের নিজেদের জীবনে সেইসব উপদেশকে মোটেই মেনে চলেনা এটা আমি (লেখক) গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি কিন্তু শেয়ার করার বেলায় তাদের নাম সর্বদা প্রথমে থাকে |

তাই নিজের জীবনকে যদি আমাদের একদম সত্যিকারেই better করতে হয় তাহলে মহান মানুষদের সেইসব উপদেশ গুলিকে শুধু দেখা কিংবা শোনা কখনই ঠিক নয় বরং বাস্তব জীবনে সেইসব উপদেশকে অক্ষরে অক্ষরে পালন করে চলতে হবে |

Read More:-
*কনফুসিয়াসের মহান কিছু উক্তি
* ৩০টি অনুপ্রেরণা মূলক বিচার যা আপনার জীবন বদলে দেবে
*বারাক ওবামার কিছু মহান উক্তি


আর্টিকেলটি যদি আপনাদের পড়ে ভালো লেগে থাকে তাহলে COMMENT করে আপনাদের মতামত আমায় অবশ্যই জানাবেন | আর আপনি যদি চান নিজের লেখা কবিতা ও ভ্রমন গল্প আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত করতে, তাহলে এখানে ক্লিক করুন |

এতক্ষণ সময় দিয়ে পড়ার জন্যে আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই Ajob Rahasya Bolg-এর পক্ষ থেকে |


About the author

admin

Hi Readers I’m Bebeto Raha, a Professional Youtuber & a blogger from Kolkata. My hobby is Playing Guitar, Making Youtube Videos, Watching Films. Also I love to read any kinds of knowledgeable book written by any good author.

View all posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *